Press "Enter" to skip to content

পূর্বধলায় রাজধলা বিল থেকে স্কুল ছাত্রের মরদেহ উদ্ধার

নেত্রকোণার পূর্বধলায় নিখোঁজ স্কুল ছাত্র আকিব হাসান মাহিন (১৭) এর মরদেহ আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধলা বিল থেকে উদ্ধার করেছেন ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরী দল। নিহত ব্যক্তি উপজেলার রাজপাড়া গ্রামের ফারুক আহমেদ (কাশেম) এর পুত্র এবং পূর্বধলা জগৎমণি সরকারী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী।

পরিবারের লোকজন জানায়, গত বুধবার বিকেল তিনটার দিকে আকিবকে বাড়ী থেকে ডেকে নিয়ে যায় একই বিদ্যালয়ে পড়ুয়া তারই দুই সহপাঠী। পরে অপর দুই বন্ধু বাসায় ফিরলেও ফেরেনি আকিব হাসান। রাত ১০টা পর্যন্ত আকিব হাসান মাহিন বাসায় না ফেরায় তাহার আত্মীয় স্বজন রাতভর বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজি করেন।

পরে আজ বৃহস্পতিবার ভোরে অনুমান সাড়ে পাঁচ ঘটিকার সময় আত্মীয় স্বজন রাজধলা বিলের উত্তরপাড়ে নিহতের পরিহিত জামা ব্যাবহৃত মোবাইল পড়ে আছে বলে খবর পায়। এতে স্থানীয় লোকজন এবং স্বজনরা ধারনা করেন নিহতের মৃতদেহ উক্ত রাজধলা বিলে থাকতে পারে। বিষয়টি পূর্বধলা থানা পুলিশকে অবহিত করলে তারা ঘটনা স্থলে গিয়ে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরিকে দলকে খবর দেয়। ডুবুরী দল ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে রাজধলা বিলের উত্তর পাড়ের দিকে পানি নিছ থেকে আকিবের মরদেহ উদ্ধার করে। পরিবারের লোকজনের দাবী আকিবকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে বিলের পানিতে ফেলে রাখা হয়েছে।

আকিবের এমন মৃত্যু ও মরদেহ পানি থেকে উত্তোলনের খবরে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বিলপাড়ে ছুটে আসে। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বাবুল চন্দ্র সরকার বলেন, আকিব হাসান মাহিন তার বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণিতে পড়ুয়া বিজ্ঞান বিভাগের একজন মেধাবী শিক্ষার্থী ছিল।

পূূর্বধলা ফায়ার সার্ভিসের দায়িত্বরত সহকারি স্টেশন ইনচার্জ মো: এমদাদুল ইসলাম জানান, রাজধলা বিলের উত্তর পাশে মোবাইল ও শার্ট পাওয়ার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌছে সন্দেহ হলে ময়মনসিংহ ডুবুরি দলকে জানানো হয়। আজ সকালে ঘটনাস্থলের ২০-২৫ ফুট দুরে পানির নিচ থেকে মরদেহ উদ্ধার করে পূর্বধলা থানার অফিসার ইনচার্জ মো. রাশেদুল ইসলামের কাছে হস্তানন্তর করা হয়েছে।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: খবিরুল আহসান। এসময় তিনি পরিস্থিতি পর্যবেক্ষন করেন এবং পরিবারের লোকজনের সাথে কথা বলেন।

পূর্বধলা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: রাশেদুল ইসলাম জানান, স্কুল ছাত্র আকিব হাসান মাহিনের মরদেহ রাজধলা বিল থেকে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। মরদেহের সুরতহাল রিপোর্ট করে ময়নাতদন্তের জন্য লাশ নেত্রকোনা মর্গে পাঠানো হয়েছে। এটি হত্যাকান্ড না অন্যকিছু তা তদন্ত সাপেক্ষে বলা যাবে।

More from আইন আদালতMore posts in আইন আদালত »
More from গণমাধ্যমMore posts in গণমাধ্যম »
More from জীবনধারাMore posts in জীবনধারা »
More from প্রশাসনMore posts in প্রশাসন »
More from মৃত্যুMore posts in মৃত্যু »
More from শিক্ষাMore posts in শিক্ষা »
More from সারা বাংলাMore posts in সারা বাংলা »
More from সারাদেশMore posts in সারাদেশ »

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Mission News Theme by Compete Themes.