Press "Enter" to skip to content

পূর্বধলা সরকারি কলেজে বুদ্ধিজীবী দিবস পালন না করে র‌্যাগ ডে পালন, উপজেলায় নিন্দার ঝড়!

দর্পন প্রতিনিধি: সারাদেশের মানুষ যখন শোকাবনত চিত্তে মহান স্বাধীনতা যুদ্ধের শহীদের স্মরণ করছে। তখন পূর্বধলা সরকারি কলেজ ছিল উৎসবমুখর পরিবেশ। র‌্যাগ ডে পার্টিতে উদ্যম আনন্দে বিভোড় শিক্ষক-শিক্ষার্থী। ১৪ ডিসেম্বর শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস। এ দিনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন ভাবগাম্বীর্যের মধ্য দিয়ে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেছে। কিন্তু নেত্রকোনার পূর্বধলা সরকারি কলেজে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে কোন কর্মসূচি পালন না করে বিএম শাখার দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীরা ‘র‌্যাগ ডে’ পালন করে উদ্যম আনন্দে। আর এই অনুষ্ঠান পালনে অনুমতি ও উপস্থিত ছিলেন কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আনোয়ারুল হক রতন।
জানা যায়, পূর্বধলা সরকারি কলেজের পেছনের অংশে রাজধলা বিলের ঘাটে প্যান্ডেল করে ঝাঁকজমকপূর্ণ ভাবে সাউন্ড সিস্টেমের মাধ্যমে দেশী-বিদেশী ডিজে গান বাজিয়ে ছাত্র-ছাত্রীরা একে অন্যের মুখে আবির মাখামাখি করে কেক কেটে র‌্যাগ ডে পালন করছে। অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আনোয়ারুল হক রতন শিক্ষার্থীদের সাথে ছবি তুলে উৎসাহ দিচ্ছেন।


সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার নিজাম উদ্দিন জানান, এদিন শোকের দিন। আমরা সবাই এদিনে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের শ্রদ্ধা জানাই। এমন দিনে এ ধরনের কর্মকান্ডে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।
সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মো. আইয়োব আলী জানান, ১৯৭১ সালে আজকের দিনে বাংলার সূর্যসন্তানদের নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে। এ দিনটি আমাদের দেশ ও জাতির জন্য শোকের দিন। এই দিনে এসব র‌্যাগ ডে অনুষ্ঠান করা কোনোভাবেই উচিত হয়নি। আমি ঘৃণা ও ধিক্কার জানাই সেই সাথে প্রধানমন্ত্রী ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কাছে এর দৃষ্টান্তমূলক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জোড় দাবী জানাই।’
উপজেলা নির্বাহী অফিসার জানান, ‘আমি বিষয়টি সম্পর্কে জানতাম না। পরে সাংবাদিকদের মাধ্যমে খবর পাওয়ার সাথে সাথে অধ্যক্ষকে অনুষ্ঠান বন্ধ করার নির্দেশ প্রদান করি।’
সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে পূর্বধলা সরকারি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্য আনোয়ারুল হক রতন বলেন, ‘ইউএনও মহোদয় ফোন করলে আমি অনুষ্ঠান বন্ধ করে দেই। অনুষ্ঠানটি ক্ষুদ্র পরিসরে করার কথা ছিল কিন্তু এত বড় হবে তা আমি ভাবতে পারিনি।’
উপজেলার সামাজিক-সাংস্কৃতিক ও সুশিল সমাজের নেতারা অধ্যক্ষের এমন কান্ডে ধীক্কার জানান। তারা কলেজে সুষ্ঠু পরিবেশ ও শিক্ষার্থীদের সঠিক শিক্ষা নিশ্চিত করার জন্য কলেজে অধ্যক্ষ নিয়োগের জন্য উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

Be Fir to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *