Press "Enter" to skip to content

পূর্বধলায় নেক ব্লাস্ট রোগে দিশেহারা কৃষকেরা

নেত্রকোনার পূর্বধলায় মাঠের পর মাঠ বোরোক্ষেত এ রোগে আক্রান্ত হওয়ায় দিশেহারা হয়ে পড়েছেন কৃষকরা। দূর থেকে দেখলে মনে হতে পারে ধান পেকে কাটার সময় হয়েছে। কিন্তু তা নয়, ছত্রাক আর মাজরা পোকার ব্যাপক আক্রমণে বোরোক্ষেতের এ অবস্থা।

এই রোগটি বিশেষ করে ব্রি-২৮ জাতের ধানে বেশি আক্রমণ করছে।
উপজেলা কৃষি অফিসের সূত্রে জানা যায়, এই বছর ২১ হাজার ৭৮০ হেক্টর জমিতে বোরো ধানের আবাদের লক্ষ্যমাত্র নির্ধারণ করা হয়েছে। ২১ হাজার ৭৫০ হেক্টর জমিতে বোরো আবাদের লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করা যাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। শুধু ব্রি ধান -২৮ চাষ করা হয়েছে ২৩℅ জমিতে।

বাড়হা গ্রামের কৃষক কালাচাঁন ফকির বলেন, বিআর-২৮ জাতের ধান চাষ করেন এক একর জমিতে। কিন্তু গত এক সপ্তাহে নেক ব্লাস্ট রোগে নষ্ট হয়ে গিয়েছে ধান ক্ষেত। তাছাড়া বাকি ধান ক্ষেত নিয়ে রয়েছে দুশ্চিন্তা।
আগিয়া ইউনিয়নের কৃষক মামুন মিয়া বলেন, তার দুই বিঘা জমির মধ্যে গত এক সপ্তাহে নেক ব্লস্টারের জন্য নষ্ট হয়ে গিয়েছে প্রায় অর্ধেক জমি বোরো ধান ।

উপজেলা কৃষি অফিসার মো. শফিকুল ইসলাম বলেন, নেক ব্লাস্ট রোগ প্রতিরোধে ১১টি ইউনিয়নের ৩৩টি ব্লকে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সমন্বয়ে স্কোয়াড গঠন করা হয়েছে। নিয়মিত চাষিদের ছত্রাক জাতীয় ওষুধ স্প্রে করার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। নিয়মিত মাঠ পরিদর্শনসহ কৃষকদের লিফলেট বিতরণ কর হচ্ছে।তাছাড়া কৃষকদের ব্রি-২৮ ও ব্রি-২৯ এর পরিবর্তে ব্রি-৮৮ ও ব্রি-৮৯ জাতের ধান আবাদের জন্য পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। এ জাতের ধানে নেক ব্লাস্ট রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা রয়েছে।

Be Fir to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Mission News Theme by Compete Themes.