Press "Enter" to skip to content

পূর্বধলায় বাধ্যতামূলক প্যাকেজ বই বিক্রি! ক্রেতারা হতাশাগ্রস্থ

দর্পন ডেক্স: নেত্রকোণার পূর্বধলা বাজারের লাইব্রেরি ও স্টেশনারীগুলোতে অনুশীলনীমূলক, গাইড (গ্রামার ও ব্যাকরণ) বই কিনতে গেলে প্যাকেজ বই ক্রয় করা বাধ্যতামূলক হয়ে দাঁড়িয়েছে। বিভিন্ন কোম্পানীর বিভিন্ন শ্রেণির বাঁধাই করা প্যাকেজ বই বাধ্যতামূলক বিক্রি করা হচ্ছে এবং প্যাকেজ ব্যতিত কোন বই লাইব্রেরিতে পাওয়া যাচ্ছে না বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্যাকেজ ব্যতিত বই কিনতে না পেরে এবং গায়ের দামে বই কিনতে হবে এমন লেখা দেখে বই ক্রেতাদের মাঝে চরম হতাশা ও ক্ষোভ বিরাজ করছে।
সরেজমিনে দেখা যায়, আজ বুধবার (২৯ জানুয়ারি) পূর্বধলা বাজারের চারু লাইব্রেরি এন্ড স্টেশনারী, প্রতিভা লাইব্রেরি এন্ড স্টেশনারী, ছাত্রবন্ধু লাইব্রেরি এন্ড স্টেশনারী, একুশে লাইব্রেরি, অতুল লাইব্রেরি এন্ড স্টেশনারী, মিনার লাইব্রেরি এন্ড স্টেশনারী ঘুরে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে।


এছাড়াও উপজেলার বিভিন্ন প্রাথমিক, মাধ্যমিক স্কুল ও মাদরাসায় সিন্ডিকেটের মাধ্যমে প্যাকেজ বই বিক্রি করা হচ্ছে। স্বার্থান্বেষী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মালিকেরা তাদের নিজেদের পছন্দসই প্রকাশনীর অনুশীলন বইগুলো ছাত্রছাত্রীদের বাধ্য করে ক্রয় করা হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। গাইড বইয়ের গুনগতমানকে উপেক্ষা করে প্রতিষ্ঠান প্রধানসহ সংশ্লিষ্টদের কথামতো ছাত্রছাত্রীরা বাধ্য হয়ে বই কিনছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ছাত্রছাত্রী জানান, আমাদের স্কুলে স্যারদের কথা মতো বই কিনে পড়ছে হচ্ছে। কেউ কেউ অন্য কোম্পানীর বই কিনে নিলেও আবার নতুন করে বই কিনতে হচ্ছে।
লাইব্রেরি মালিকেরা জানান, কোন কোম্পানী প্যাকেজ ছাড়া বই বিক্রয় করা হয় না এবং প্যাকেজ ছাড়া কোন বই বিক্রি করলে তা কোম্পানী ফেরতও নেয় না। এসব কারণে ভেঙ্গে ভেঙ্গে বা খুচরা বই বিক্রি করা যাচ্ছে না। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের চাহিদা অনুযায়ী একাধিক প্রকাশনীর প্যাকেজ বই বিক্রি করতে হয়।
পাঞ্জেরি প্রকাশনীর মার্কেটিং অফিসার মো. শরীফ আহমেদ জানান, দেশের সব প্রকাশনী কোম্পানীর প্যাকেজ ব্যতিত কোন বই বিক্রি করে না। আমাদের প্রকাশনীর ক্ষেত্রেও কোন প্যাকেজ ছাড়া বই বিক্রয় করা যাচ্ছে না। পুথি নিলয় প্রকাশনীর মার্কেটিং অফিসার মো. লুৎফর রহমান জানান, ক্রেতাকে প্যাকেজ বই একসাথে কিনতে হবে। আলাদা আলাদা ক্রয়-বিক্রয় করা যাবেনা। বাংলা ব্যাকরণ ও ইংরেজি গ্রামার বই পৃথক পৃথক কিনতে চাইলে তিনি এ বিষয়ে কথা বলতে নারাজ।
বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতির পূর্বধলা উপজেলা কমিটির সভাপতি সভাপতি বিকাশ চন্দ্র সরকার জানান, কোন প্রকাশনীর খুচরা বই কখনো ফেরত নেয় না। নিয়ম নীতির মধ্যে থেকে আমাদের ব্যবসা পরিচালনা করতে হয়। আমাদের কিছুই করার থাকেনা।

Be Fir to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *